ফের শেয়ার বাজার ধসের তুঙ্গে !

নিজস্ব প্রতিবেদক :

 

দেশে  লকডাউন এর খবর আসতেই  গতকাল শেয়ারবাজাটিতে ফের বড় ধরনের দরপতনের ধস নেমেছে । দেশে লকডাউন এর প্রথম দিনেই শেয়ারবাজারটিতে বড় ধরণের উত্থান নেমেছে ।

 

 

এমনকি  প্রধান শেয়ারবাজার ঢাকা স্টক এক্সচেঞ্জ (ডিএসই) এবং অপর শেয়ারবাজার চট্টগ্রাম স্টক এক্সচেঞ্জের (সিএসই) সবকটি মূল্যসূচকের পাশাপাশি  বেড়েছে বেশিরভাগ প্রতিষ্ঠানের শেয়ার ও ইউনিটের দাম।দেশে মহামারি করোনাভাইরাস এর সংক্রমণ উদ্বেগ জনক হারে বাড়াতে গতকাল ১১ দফা নির্দেশনা দিয়ে সাত  দিনের জন্য লকডাউন সংক্রান্ত  প্রজ্ঞাপন জারি করে  সরকার। এমনকি এর আগেই বিভিন্ন ভাবে গুঞ্জন ছড়িয়ে পড়ে, যে কোনো মুহূর্তে লকডাউন দেয়া হতে পারে। এতে করে কয়েক দিন ধরেই শেয়ার বাজারে নেতিবাচক অবস্থা বিরাজ করছিল।গত কাল  লকডাউন সংক্রান্ত প্রজ্ঞাপন জারির পর শেয়ারবাজারে রীতিমতো ধস নামে।

 

ডিএসইর প্রধান মূল্যসূচক ১৮১ পয়েন্ট পড়ে যায়। বাজার মূলধন কমে ১৫ হাজার কোটি টাকার ওপরে।এমনকি আজ লেনদেন শুরু হতেই ডিএসইর প্রধান মূল্যসূচক ডিএসএক্স ১০ পয়েন্ট বেড়ে যায়। সময়ের সঙ্গে সূচকের ঊর্ধ্বমুখী প্রবণতা আরও বাড়ে।এর  আগে শেয়ারবাজারে লেনদেন বন্ধ হয়ে যেতে পারে এমন আশঙ্কায় ছিলেন বিনিয়োগকারীরা। তবে নিয়ন্ত্রক সংস্থা বাংলাদেশ সিকিউরিটিজ অ্যান্ড এক্সচেঞ্জ কমিশনের (বিএসইসি) চেয়ারম্যান অধ্যাপক শিবলী রুবাইয়াত-উল ইসলামের ভূমিকার কারণে লকডাউনের  মাঝেও শেয়ারবাজারে  লেনদেন চলমান রয়েছে।এমনকি ব্যাংকের লেনদেনের সময় কমানোর কারণে শেয়ারবাজারে লেনদেনের সময় কমানো হয়েছে।

 

 

নতুন সময়সূচি অনুযায়ী, পরবর্তী সিদ্ধান্ত না দেয়া পর্যন্ত আজ থেকে শেয়ারবাজারে সকাল ১০টা  থেকে দুপুর ১২টা পর্যন্ত দুই ঘণ্টা লেনদেন হবে।এতে দিনের  লেনদেন শেষে ডিএসইর প্রধান সূচক ডিএসইএক্স ৮৮ পয়েন্টে বেড়ে ৫ হাজার ১৭৭ পয়েন্টে উঠে এসেছে। অপর দুই সূচকের মধ্যে ডিএসই শরিয়াহ্ ১৬ পয়েন্ট বেড়ে ১ হাজার ১৮২ পয়েন্টে দাঁড়িয়েছে।

 

আর ডিএসই-৩০ সূচক ৪৩ পয়েন্ট বেড়ে ১ হাজার ৯৪৪ পয়েন্টে অবস্থান করছে।লেনদেন   শেষে ডিএসইতে দাম বাড়ার তালিকায় নাম লিখিয়েছে ২৩১টি প্রতিষ্ঠান। বিপরীতে দাম কমেছে ১৪টি প্রতিষ্ঠানের শেয়ার ও ইউনিট।

 

আর ৭৬টির  দাম অপরিবর্তিত রয়েছে। দুই ঘণ্টার এই লেনদেনে ডিএসইতে লেনদেন হয়েছে ২৩৬ কোটি ৬০ লাখ টাকা।বেশিরভাগ  প্রতিষ্ঠানের দাম বাড়ায় দিনের লেনদেন শেষে ডিএসইর বাজার মূলধন দাঁড়িয়েছে ৪ লাখ ৫০ হাজার ৯৩০কোটি টাকা। যা আগের কার্যদিবসের লেনদেন শেষে ছিল ৪ লাখ ৪৩ হাজার ৩৪৫ কোটি টাকা। অর্থাৎ একদিনেই ডিএসইর বাজার মূলধন বেড়েছে ৭ হাজার ৫৮৫ কোটি টাকা।

 

 

মূলধন বাড়ার অর্থ হলো তালিকাভুক্ত কোম্পানিগুলোর শেয়ারের দাম সম্মেলিতভাবে ওই পরিমাণ বেড়েছে। আর একটি  শেয়ারবাজার চট্টগ্রাম স্টক এক্সচেঞ্জের (সিএসই) সার্বিক সূচক সিএএসপিআই ২৫০ পয়েন্ট বেড়েছে। লেনদেন হয়েছে ১৬ কোটি ২ লাখ টাকা। লেনদেনে অংশ  নেয়া ১৮৫ প্রতিষ্ঠানের  মধ্যে দাম  বেড়েছে ১২২টির,  কমেছে ২৭টির এবং অপরিবর্তিত রয়েছে ৩৬টির।

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *