রাণীশংকৈল বাসীর গর্ব স্বপ্না ও সোহাগী
মাহাবুব আলম,, রাণীশংকৈল (ঠাকুরগাঁও) প্রতিনিধি :   নেপাল কে হারালো বাংলাদেশের মেয়েরা গত ১৯ সেপ্টেম্বর কাঠমান্ডু দশরথ স্টেডিয়ামে। ৩-১ গোলে হারিয়ে সাফ চ্যাম্পিয়ন হয় নারী ফুটবল দল আর সে দলের হয়ে ২জন ছিলেন ঠাকুরগাঁওয়ের রাণীশংকৈল উপজেলার স্বপ্না ও সোহাগী। ইতিহাস গড়া এ খেলায় অংশগ্রহণ করেছেন দেশের সর্বউত্তরের জেলা ঠাকুরগাঁওয়ের রাণীশংকৈল উপজেলার রাঙ্গাটুঙ্গি ইউনাইটেড প্রমিলা ফুটবল একাডেমির দুই কৃতি খেলোয়ার স্বপ্না রাণী ও সোহাগী কিসকু। ২০ সেপ্টেম্বর তাদের বাসায় ভিড় জমায় স্থানীয় লোকজন। কুঁড়েঘরে থাকা শ্রমজীবি বাবার ঘামঝরা আদরে বেড়ে উঠা স্বপ্না রাণী ও বর্গাচাষী বাবার দারিদ্র্যতা জয় করে সোহাগী কিসকু আজ দেশের সম্পদ হয়ে দাড়িয়েছে ।
দরিদ্র স্বপ্না রাণীর বাবা নিরেন চন্দ্র মঙ্গলবার সাংবাদিকদের বলেন, আমার ৩ মেয়ে ১ ছেলে, সব চেয়ে ছোট হচ্ছে স্বপ্না রাণী সে আজ জাতীয় দলের খেলোয়ার। শুধু দারিদ্র নয় একসময় আমার পরিবারকে লড়াই করতে হয়েছে ধর্মীয় কুসংস্কারের সাথে। তারা অনেকেই বলতো মেয়ে মানুষকে হাফ প্যান্ট পরে ফুটবল খেলা ঠিক না। এমনকি তাদের নাকি বিয়ে দেওয়াও মুশকিল হয়ে পড়বে।
কিন্তু সে বাধা উপেক্ষা করে আমার মেয়ে খেলার মাঠে যেতো প্রতিদিন। তার খেলার সামগ্রি বুট, জার্সি, ঔষধ এবং মাঠে যাওয়ার জন্য একটি বাইসাইকেল কিনে দেয় রাঙ্গাটুঙ্গি ইউনাইটেড প্রমিলা ফুটবল একাডেমির পরিচালক সাবেক অধ্যক্ষ তাজুল ইসলাম। আজ চ্যাম্পিয়ন হওয়ায় আমার খুব আনন্দ লাগছে।সোহাগী কিসকুর বোন ইপিনা কিসকু বলেন, আজকে বাংলাদেশের নারী ফুটবল দল জয়ী হয়েছে।
এতে আমার বোন রয়েছে আমরা সবাই খুশি আর ঠাকুরগাঁও জেলাবাসিও গর্বিত। এ প্রসঙ্গে রাঙ্গাটুঙ্গি ইউনাইটেড প্রমিলা ফুটবল একাডেমির পরিচালক সাবেক অধ্যক্ষ তাজুল ইসলাম এ প্রতিনিধিকে বলেন, নারী ফুটবল দল চ্যাম্পিয়ন হওয়ায় আমাদের জন্য গর্বের ব্যাপার। এজন্য বাংলাদেশ দলকে আমি অভিনন্দন জানাই। এ বিজয় আমাদের জন্য যেমন গর্বের তেমনি ঠাকুরগাঁওয়ের জন্য একটু বেশিই গর্বের। কারণ আমাদের জেলার স্বপ্না ও সোহাগী দুজন মাত্র খেলোয়ার। উপজেলা নির্বাহি অফিসার সোহেল সুলতান জুরকার নাইন কবির স্টিভ বলেন, প্রথমত বাংলাদেশ ফুটবল দলকে অভিনন্দন জানাই।
সেই সঙ্গে এ উপজেলার দুজন খেলোয়ার জাতীয় দলের হয়ে খেলায় অংশগ্রহণ করায় তাদের জন্য আমরা গর্বিত। তারা আগামি ৫ আক্টোবর ছুটিতে আসলে তাদের সম্বর্ধনা দেওয়া হবে।

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *